Home » জাতীয় » আনারস চাষের সম্ভাবনা রাঙ্গামাটি’র সীমান্ত ছারিয়ে; জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পাচ্ছে খাগড়াছড়িতে

আনারস চাষের সম্ভাবনা রাঙ্গামাটি’র সীমান্ত ছারিয়ে; জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পাচ্ছে খাগড়াছড়িতে

মোঃ লোকমান হোসেন খাগড়াছড়ি :
আনারস চাষের সুফল ও সম্ভাবনা রাঙ্গামাটি’র সীমান্ত ছাড়িয়ে, কৃষকের মন জয় করে এর জনপ্রিয়তা অর্জনের পথে এখন খাগড়াছড়ি।


আনারস চাষে তিন পার্বত্য জেলার মধ্যে ১ নাম্বারে ছিল রাঙ্গামাটি জেলার কৃষকরা, রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলার কৃষকদের মন জয় করে আনারস চাষ, পাড়ি জমিয়েছে এখন কৃষকের মন জয়ের পথে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলায়।
খাগড়াছড়িতে অনেক আগে থেকেই আনারস চাষে আগ্রহ ছিল কিছু কিছু কৃষকদের মনে কিন্তু প্রাতিষ্ঠানিক তেমন রূপ পায়নি আনারস চাষে এই খাগড়াছড়ি’র কৃষক।


খাগড়াছড়ি’র মহালছড়ি উপজেলার কাটিং টিলা গ্রামের মোঃ আজিজুল হকের ছেলে মোঃ ইসমাইল হোসেন (৪০) ও তার ছোট বোন জামাই মোঃ দীন ইসলাম।

আরও পড়ুন :

সুনামগঞ্জে সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনায় আরও ১জন গ্রেপ্তার

দেশ এখন উন্নয়নের আলোয় আলোকিত: পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান
মহালছড়ি উপজেলার কাটিং টিলার মোঃ ইসমাইল হোসেন দীর্ঘ ১৩ বছর ধরে এ আনারস চাষ কর সফলতা অর্জন করে, সেই সফলতা কাছে লাগাতে অতি সাহসের সাথে হাতে নিয়েছেন। বিশ একর জমির উপর আনারস চাষ প্রকল্প, তিন বছরের জন্য চুক্তি ভিত্তিক এই আনারস চাষ প্রকল্পে কাজ শুরু করেছেন তিনি সাথে আছেন তারা ছোট বোনের জামাই।
বিরাট এ আনারস চাষ প্রকল্পে কারো সহায়তা ও প্রশিক্ষণ ছাড়াই, নিজস্ব ও বাস্তব অভিজ্ঞতার আলোকেই কাজ শুরু করেছেন মোঃ ইসমাইল হোসেন। ইতিমধ্যে প্রাথমিক ভাবে সাত লাখ আনারসের তারা ক্রয় করে, চারা রোপণের কাজও প্রায় শেষ পর্যায়ে রয়েছে।


মোঃ ইসমাইল হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি প্রায় ১৩ বছর আনারস চাষ করে যে নিজস্ব ও বাস্তব অভিজ্ঞতার অর্জন আমার হয়েছে তা দিয়েই এই প্রকল্পের কাজ শুরু করেছি।
তিনি বর্তমান আনারস চাষ পদ্ধতি তুলে ধরে বলেন, জমি প্রস্তুত থেকে শুরু করে আনারস তারা রোপণ সহ তিন বার আগাছা পরিষ্কার সার প্রয়োগ করে আনারস কাটা পর্যন্ত তারা প্রতি সর্বোচ্চ ৭টাকা ব্যয় দেখানো হয়।

আর বিক্রি মূল্য দেখানো হয় প্রতি পিস ১১,টা থেকে ১৪,টাকা পর্যন্ত। আয় ও ব্যয় হিসাব দেখান এভাবে যেমন আনারস বিক্রি। ব্যয় সর্ব উচ্চ ৪৯,০০,০০০.টাকা হতে পারে। বিক্র মূল্য সর্ব নিম্ন ১১*৬,০০,০০০.টা সমান ৬৬,০০,০০০-৪৯,০০,০০০ হলে টাকা লাভ হবে ১৭,০০,০০০.টাকা, থেকে সর্ব উচ্চ ১৪.টাকা হারে ১৪*৬,০০,০০০.সমান ৮৪,০০,০০০-৪৯,০০,০০০.সমান ৩৫,০০,০০০.টাকা লাভ হতে পারে বলে মনে করেন মোঃ ইসমাইল হোসেন।

(r)

0 Shares