Home » আন্তর্জাতিক » ইরানি ট্যাংকারে জোড়া ক্ষেপণাস্ত্র হামলা রহস্যেই রয়ে গেল!
A handout picture released Iranian State TV IRIB on October 10, 2019, allegedly shows the Iranian crude oil tanker Sabiti sailing in the Red Sea. - An Iranian oil tanker was hit by suspected missile strikes near the Saudi port of Jeddah, causing oil to leak into the Red Sea, the ship's owner said. The National Iranian Tanker Company said in a statement that the hull of the Sabiti was hit by two separate explosions about 100 kilometres (60 miles) off the Saudi coast. (Photo by HO / IRIB TV / AFP) / RESTRICTED TO EDITORIAL USE - MANDATORY CREDIT "AFP PHOTO / HO / IRIB" NO MARKETING NO ADVERTISING CAMPAIGNS - DISTRIBUTED AS A SERVICE TO CLIENTS FROM ALTERNATIVE SOURCES, AFP IS NOT RESPONSIBLE FOR ANY DIGITAL ALTERATIONS TO THE PICTURE'S EDITORIAL CONTENT, DATE AND LOCATION WHICH CANNOT BE INDEPENDENTLY VERIFIED - NO RESALE - NO ACCESS ISRAEL MEDIA/PERSIAN LANGUAGE TV STATIONS/ OUTSIDE IRAN/ STRICTLY NI ACCESS BBC PERSIAN/ VOA PERSIAN/ MANOTO-1 TV/ IRAN INTERNATIONAL /

ইরানি ট্যাংকারে জোড়া ক্ষেপণাস্ত্র হামলা রহস্যেই রয়ে গেল!

 

ইরানি জাতীয় ট্যাংকার কোম্পানি বলছে, জেদ্দায় সাবিতি নামের ওই ট্যাংকারটির খোলে আলাদা দুটি ক্ষেপণাস্ত্র হামলা হয়েছে। এতে সেটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

প্রাথমিকভাবে সৌদি আরবকে ওই হামলায় দায়ী করা হলেও পরে তা প্রত্যাহার করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত কেউ ওই হামলার দায় স্বীকার করেনি। ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে এসব তথ্য জানা গেছে।

হামলার খবরের পর বিশ্ববাজারে তেলের দাম দুই শতাংশ বেড়ে গেছে। ইরান ও সৌদির মধ্যে নতুন করে সংঘাতের উদ্বেগ বাড়িয়ে দিয়েছে ওই ঘটনা।

এসইবি পণ্য বিশ্লেষক বিজার্নি সিলড্রোপ বলেন, এটা মধ্যপ্রাচ্যের সংকটে নতুন ইন্ধন জুগিয়েছে।

ইউরেশিয়া গ্রুপের আইহাম কামেল হুশিয়ারি প্রকাশ করে বলেন, উত্তেজনা কমাতে চলমান উদ্যোগ থামানো যাবে না।

তিনি বলেন, যদি ওই হামলা সৌদিরা না করেন, তবে ইসরাইল করতে পারে। ইরানের আয়ের মূল উৎস তেল রফতানি ব্যাহত করতেই এই হামলা হতে পারে।

তবে উপসাগরীয় উত্তেজনা কমাতে সৌদি ও ইরান- দুই দেশই আগ্রহ দেখিয়েছে।

তিনি বলেন, আঞ্চলিক উত্তেজনা কমাতে নেয়া উদ্যোগকে ওই হামলা ভিন্নপথে নিয়ে যেতে পারবে না। ইরান ও সৌদির মধ্যে একটি উত্তেজনা বাড়াতে বাস্তবিকভাবে ওই হামলা কোনো ভূমিকা রাখবে না।

নিউটার্ন.কম/AR

0 Shares