Home » তথ্যপ্রযুক্তি » উল্লেখযোগ্য মাইলস্টোন অর্জনের মাধ্যমে গত বছরকে বিদায় দিয়ে নতুন বছর শুরু লাইকি’র

উল্লেখযোগ্য মাইলস্টোন অর্জনের মাধ্যমে গত বছরকে বিদায় দিয়ে নতুন বছর শুরু লাইকি’র

ঢাকা : ক্রিয়েটর ইকোসিস্টেম, কনটেন্ট ক্যাটাগরি, প্ল্যাটফর্মে নতুন ফিচার, ইউজার অ্যাক্টিভিটি ও ব্র্যান্ড কোলাবোরেশনের মতো উল্লেখযোগ্য মাইলস্টোন অর্জনের মাধ্যমে গত বছরকে বিদায় দিয়ে নতুন বছর শুরু করেছে জনপ্রিয় স্বল্পদৈর্ঘ্যের ভিডিও তৈরির প্ল্যাটফর্ম ও শেয়ারিং অ্যাপ লাইকি।
গত বছর ক্রিয়েটরদের জন্য উন্নত ইকোসিস্টেম তৈরি করতে লাইকি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে। গত বছর লাইকি সাড়া বিশ্বে বিপুল সংখ্যক ক্রিয়েটর তৈরি করতে বিভিন্ন অনুষ্ঠান ও ট্যালেন্ট শো প্রোগ্রাম চালু করেছে। এর ফলে, প্ল্যাটফর্মটিতে সফলভাবে দশ হাজারেরও বেশি নতুন ক্রিয়েটর যুক্ত হয়।
গত বছর আয়োজিত ‘২০২০ বাংলাদেশি ডিজিটাল অ্যাওয়ার্ড’ প্রতিযোগিতায় লাইকি বাংলাদেশ শীর্ষ দুই জন কনটেন্ট ক্রিয়েটর পাঠায়। প্রতিযোগিতায় দুই জন কনটেন্ট ক্রিয়েটরই ‘বেস্ট কনটেন্ট ক্রিয়েটর’ এর পুরস্কার অর্জন করেন। ২০২১ সালের প্রথম অর্ধে প্রতিভাবান কনটেন্ট ক্রিয়েটরের সন্ধানে লাইকি ইন্দোনেশিয়ায় লাইকি স্টার আইডল সিরিজের আয়োজন করে। এ প্রোগ্রামের মাধ্যমে অসাধারণ গায়কি প্রতিভার ইহসান তেররে উঠে আসেন, যিনি ইন্দোনেশিয়ার জনপ্রিয় প্রতিভা অন্বেষণকারী অনুষ্ঠান ‘ইন্দোনেশিয়ান আইডলে’ অংশ নেন। মিউজিক ভিডিওসহ একটি একক গান তৈরিতে সহায়তা করার জন্য লাইকি নারীদের নিয়ে ড্রিমগার্লস নামের একটি ব্যান্ড তৈরি করে। মিউজিক ভিডিওটি ১৫ মিলিয়নেরও বেশি সংখ্যকবার দেখা হয়েছে। পাকিস্তানে ২০২১ সালে ‘লাইকি টিম’ প্রতিযোগিতা চালু করে প্রতিষ্ঠানটি, যেখানে ৬৮ শতাংশ লাইকি ভ্যারিফায়েড অসাধারণ কনটেন্ট ক্রিয়েটর ১ লাখ ৪০ হাজার হাই-কোয়ালিটি ভিডিও কনটেন্ট তৈরিতে অবদান রাখে। কনটেন্ট ক্রিয়েটরদের কঠোর পরিশ্রমকে স্বীকৃতি প্রদানের জন্য লাইকি তাদেরকে জিএনএন টেলিভিশনের প্রাইমটাইম প্রোগ্রামে অংশ নেয়ার সুযোগ করে দেয়, যা ‘টিম সাইফু’ এর জন্য প্রথম কোন আনুষ্ঠানিক প্রোগ্রাম।
বৈচিত্র্যপূর্ণ কনটেন্ট প্ল্যাটফর্মে পরিণত হয়েছে লাইকি। ফলে, এ প্ল্যাটফর্মে ব্যবহারকারীরা প্রায় ২০টি ক্যাটাগরির কনটেন্ট উপভোগ করতে পারবেন। এর মধ্যে কমেডি, স্পোর্ট, গেমিং, ফ্যাশন, মিউজিক, পেট ও খাবার সংক্রান্ত কনটেন্ট রয়েছে। ব্যবহারকারীদের জন্য উপভোগ্য সব ক্যাম্পেইন নিয়ে আসে লাইকি। বাংলাদেশের স্বনামধন্য শিক্ষাবিষয়ক প্ল্যাটফর্ম ‘টেন মিনিট স্কুল’ -এর সহযোগিতায় ২০২১ সালে ‘নলেজ মান্থ’ ক্যাম্পেইন চালু করে লাইকি বাংলাদেশ। এ ক্যাম্পেইন চলাকালীন সময়ে ১ হাজার ৯০৪ জন ব্যবহারকারী সর্বমোট ৫ হাজার ৪৭০টি ভিডিও আপলোড করেন। এ ভিডিওগুলো ৩৫.৮ মিলিয়ন সংখ্যক বার দেখা হয়। পাকিস্তানে ১৩৪ শীর্ষ গেমিং ক্রিয়েটররা লাইকি গেমিং জোন কমিউনিটি তৈরি করে, এ জোনে থেকে ভিডিওগুলো ১০০ মিলিয়ন বার দেখা হয়। ২০২১ সালে ইন্দোনেশিয়ায় ফ্যাশন ও বিউটি ক্যাটাগরিতে ৩০টি হ্যাশট্যাগ চ্যালেঞ্জ চালু করে। এ চ্যালেঞ্জগুলোতে প্রায় ১৫০টি স্বল্প দৈর্ঘ্যের ভিডিও আপলোড করা হয় এবং এগুলো লাখেরও অধিক ভিউ প্রাপ্ত হয়।
ব্যবহারকারীদের নিজস্ব প্রতিভার বিকাশের সুযোগ প্রদানে ২০২১ সালে বিভিন্ন সময়ে নানান ধরনের উদ্ভাবনী ফিচার চালু করেছে লাইকি। এর মধ্যে একটি ফিচার হলো ফ্রেন্ডস, এ ফিচারটির মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা তাদের নিজস্ব ও ব্যক্তিগত অনলাইন পরিসর তৈরি করতে পারে; সুপারলাইক হলো উদ্ভাবনী উপায়ে কনটেন্ট দেখে তার প্রতিক্রিয়া জানানোর ফিচার এবং সুপারফলো কনটেন্ট ক্রিয়েটরদের জন্য গ্রাহকভিত্তিক সেবা প্রদানকারী সার্ভিস, যেখান থেকে তারা মাসিক সাবস্ক্রিশন ফি থেকে উপার্জন করার সুযোগ পাবেন।
২০২১ সালে সকল কনটেন্ট ক্রিয়েটরদের একত্রিত করতে গ্রাফ-বেজড কমিউনিটি তৈরি করার প্রচেষ্টা গ্রহণ করেছে লাইকি। ইন-অ্যাপ কার্যক্রম ‘কিকি গেম’ বিকাশ করেছে লাইকি, যা বিশেষ করে তরুণদের জন্য নকশা করা হয়েছে এবং তরুণ ব্যবহারকারীদের আরো সম্পৃক্ত করতে ও গেম খেলে পুরস্কার জিততে উৎসাহিত করা হয়েছে। এতে করে লাইকি বিশ্বজুড়ে তরুণদের আকর্ষণীয় প্ল্যাটফর্মে পরিণত হয়েছে, যেখানে পুরুষ ব্যবহারকারীদের চেয়ে নারী ব্যবহারকারীর সংখ্যা বেশি ছিলো। ২০২১ সালে সর্বমোট লাইকি ব্যবহারীদের অর্ধেকেরও বেশি ছিলো তরুণ। ‘নেক্সট জেন কমিউনিটি’ তৈরিতে সবসময় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ রয়েছে লাইকি, যা তরুণদের পছন্দের প্ল্যাটফর্ম হিসেবে বিবেচিত করবে এবং একই বিষয় পছন্দকারী ব্যবহারকারীদের সংযুক্ত রাখবে।
বিভিন্ন ধরনের ব্র্যান্ড এক্সপোজার প্রদানের মাধ্যমে অংশীদারদের সাহায্য করতে কাজ করবে লাইকি। এর মধ্যে রয়েছে লাইভ স্ট্রিমিং, হ্যাশট্যাগ চ্যালেঞ্জ ও কেওএল প্রমোশন। গত বছর অনেক ধরনের ব্র্যান্ড পার্টনারশিপ করেছে লাইকি। এর মধ্যে রয়েছে আন্তর্জাতিক পরিসরে প্রশংসিত ব্র্যান্ড পেপসি, অপো ইত্যাদি। রাশিয়ার স্বাস্থ্যকর পপকর্ন স্ন্যাক হলি কর্ন এর সাথে অংশীদারিত্বে লাইকি হলি কর্ন এক্স লাইকি চালু করে। এবং এর মাধ্যমে তাৎক্ষণিক ফলও পাওয়া যায় এবং এই ধারণাগত পণ্যটি ইন্টিগ্রেটেড অনলাইন মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে ১৪০০ শতাংশেরও বেশি আরওআই পায়। এ সফল ক্যাম্পেইনটি হলি কর্ন ২০২১ এফি অ্যাওয়ার্ড রাশিয়ায় দু’টি পুরস্কার পায়। এর মধ্যে একটি হলো: বিজনেস চ্যালেঞ্জ (সিলভার) এবং বিজনেস বাজেট ( ব্রোঞ্জ)।
এ নিয়ে হেড অব লাইকি অপারেশন্স গিবসন ইউয়েন বলেন, ‘লাইকি প্ল্যাটফর্মটি সকল বয়সী মানুষ ও প্রতিটি ব্র্যান্ডের কাছে জনপ্রিয়তা অর্জন করছে। বিশেষ করে, গত বছর লাইকি’র জন্য অসাধারণ বছর ছিলো। কারণ এ বছর লাইকি’র প্রবৃদ্ধি ছিলো বেশ ইতিবাচক এবং আমরা আমাদের ব্র্যান্ড অংশীদারদের কার্যকর সমাধান ও কৌশলগত বিপণন সেবা প্রদান করেছি, যা অন্যান্য ব্র্যান্ডগুলোকে প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে সহায়তা করেছে।’ -সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

0 Shares