Home » মতামত » করোনা বিপদ ও সতর্কতা …….মাহফুজার রহমান মন্ডল

করোনা বিপদ ও সতর্কতা …….মাহফুজার রহমান মন্ডল

 

হাজারো কর্ম ব্যস্ততার মধ্যে দিন যায় দিন আসে। ব্যাস্ততার মধ্যে গিন্নিকে একটু সময় দেয়া নিয়ে মাঝে মাঝে বাকবিতণ্ডার মধ্যে জড়াতে হয়। ১৭ মার্চের পর হঠাৎ গ্রাম থেকে ফোন আসে; ফোন ধরতেই চেচিয়ে উঠে বলে তুই কি ঘুমিয়ে পড়ছিস বউ বাচাদের মেরে ফেলবি না কি? উত্তর দেয়ার কোনো সুযোগই দিলো না; যা তা বকাবকি শুরু করলো। ফোনটা কেটে দিয়ে হতভম্ব অবস্থায় ভাবতে শুরু করলাম কিন্তু ভেবে লাভ কি ঢাকা থেকেতো গণপরিবহন একেবারেই চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। কিছুক্ষণ পর ফোন ব্যাক করলাম আর বুঝিয়ে বললাম – কিভাবে যাবো সবকিছুতো বন্ধ কিছু দিন আগে বললে হয়তো যেতে পারতাম এই ব্যস্ত শহরে এতকিছু কি আর মনে থাকে । এবার বল দেখি কি করবো, কি করবি আর দেখছিস না বিদেশিরা এসে গেছে তাদের কি বাহার কেউ বিয়ে করছে, কেউ বিল্ডিং বানাচ্ছে, কেউ আড্ডা দিচ্ছে আর ঢাকায় যারা চাকরি করছে তারাও এসেছে। দলে দলে আড্ডা, গল্প , হাসাহাসি কতকিছু তোরা আসলে আমরাও না হয় কিছু করতাম। কি বলিস বুবু খবর দেখিস না দেশে কি হচ্ছে ? হ্যাঁ শুনেছি মরণ ব্যাধি করোনা ভাইরাস এসেছে তোমরা ঢাকায় থাকলে যদি কিছু হয়ে যায়। না না বুবু, স্বাস্থবিধি ও সামাজিক দূরুত্ব বজায় না রাখলে আমাদের আগে তোমরা আক্রান্ত হতে পারো। তাহলে আমাদের করণীয় কি? চিন্তা করিস না বুবু নিচের কিছুনিয়মগুলো মেনে চললে আল্লাহর রহমত আমরা সবাই ভালো থাকবো। তাহলে শুনো –

“আমাদের গণপরিবহন পরিহার করতে হবে। যারা জরুরি প্রয়োজনে গণপরিবহন ব্যবহার করবে তাদের অবশ্যই করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হওয়া থেকে মুক্ত থাকতে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করেই গণপরিবহন ব্যবহার করবে। সবজায়গায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। সব ধরনের সামাজিক রাজনৈতিক ও ধর্মীয় সমাগম সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ তা মেনে চলতে হবে। বিশেষ করে অসুস্থ জ্বর সর্দি কাশিতে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মসজিদে বা জনসংগমে না যাওয়াই ভালো।এছাড়া আমাদের কয়েকটি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে যেমন – করোনাভাইরাস প্রতিরোধ সহজ হবে যদি ঘনঘন সাবান-পানি দিয়ে হাত পরিষ্কার করি, হাঁচি-কাশি দিতে হলে রুমাল বা টিস্যু পেপার দিয়ে নাক-মুখ ঢেকে নিতে এবং যেখানে-সেখানে কফ-থুথু ফেলা থেকে বিরত থাকতে হবে। এছাড়া কোলাকোলি ও করমর্দন থেকে বিরত থাকতে হবে।“

আমরা এতক্ষণ ধরে যা পড়লাম আসলে তাই বাস্তব। যে ব্যাধির টিকা এখনো আবিষ্কার হয়নি বা আবিষ্কার হলেও ১৮ মাস পর ছাড়া প্রয়োগ করা যাবে না। তারচেয়ে ভালো হয় একটু নিয়মগুলো মেনে চলা। এরই ধারাবাহিকতায় আজ মেনে চলতে হবে কোয়ারেন্টাইন, হোম কোয়ারেন্টাইন, আইসোলেশন এবং লকডাউন। দেশে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৬১, মৃত্যু ৬ ও সুস্থ হয়েছে ২৬ জন গতকাল পর্যন্ত। তাহলে আমরা জেনে নেই কোয়ারেন্টাইন, হোম কোয়ারেন্টাইন, আইসোলেশন, লকডাউন কি?

কোয়ারেন্টাইন(১৪ দিন পর্যন্ত কাউকে কোনো নির্দিষ্ট রুমে রাখলে যদি তার ভেতরে জীবাণু থাকে তাহলে উপসর্গ দেখা দিবে আর উপসর্গ দেখা দিলে তাকে আইসোলেশনে নিয়ে যেতে হবে), আইসোলেশন( যখন জীবাণুর উপস্থিতি ধরা পড়ে বা উপসর্গ থাকে তখন তাকে আলাদা করে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা।), হোম কোয়ারেন্টাইন(কোন ব্যক্তি যখন বাড়িতেই কোয়ারেন্টাইনের সকল নিয়ম মেনে, বাইরের লোকজনের সাথে ওঠাবসা বন্ধ করে আলাদা থাকেন, তখন সেটিকে হোম কোয়ারেন্টাইন বলা হয়।), লকডাউন( কোন জরুরি পরিস্থিতির কারণে সাধারণ মানুষকে কোনো জায়গা থেকে বের হতে না দেয়া কিংবা ওই জায়গায় প্রবেশ করতে বাধা দেয়াই হলো লকডাউন।)

যাইহোক সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণ ও সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণের সুবিধার্থে সশস্ত্র বাহিনী জেলা প্রশাসনকে সহায়তায় নিয়োজিত রয়েছেন। দেশের ৬৪ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট তাদের স্ব স্ব জেলার প্রয়োজন অনুযায়ী সশস্ত্র বাহিনীর জেলা কমান্ডারকে রিকুইজিশন দিচ্ছেন। এতে দেশ তথা জাতি রক্ষা পাবে বলে আশাবাদী আমরা।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ব্যাখ্যা করেছে যে সংক্রামক রোগের আইন আছে, এই সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল) আইন, ২০১৮-এর আওতায় করোনাভাইরাসের ক্ষেত্রে কোন কোন বিষয় না মানলে একজন ব্যক্তি এ আইনে অপরাধী বলে চিহ্নিত হতে পারেন। আইন অনুযায়ী, কোনো অস্থায়ী বাসস্থান বা আবাসিক হোটেল ও বোর্ডিংয়ে অবস্থানকারীদের কেউ এ সংক্রামক রোগে আক্রান্ত হলে অবশ্যই সংশ্লিষ্ট সিভিল সার্জন ও জেলা প্রশাসককে জানাতে হবে।

কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি যুক্তরাষ্টে । তবে কিছু দিন আগে ইতালি ও ফ্রাঞ্চ -এ আক্রান্তের সংখ্যা বেশি ছিল। দিন যত যাচ্ছে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে তবে সামনে কোন দেশে সবচেয়ে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা বাড়বে তা আল্লাহই ভালো জানেন।

রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান(আইইডিসিআর) থেকে বলা হয়েছে জ্বর, সর্দি, কাশি মানেই কোভিড–১৯ নয়। তাই আতঙ্কিত না হয়ে আমরা সতর্ক হই। স্বাস্থবিধি ও সামাজিক দূরুত্ব মেনে চলি এটাই আমাদের কাম্য হোক।

53 Shares