Home » Uncategorized » করোনাভাইরাস: লকডাউনের পর আবার শুরু হচ্ছে জার্মান ফুটবল

করোনাভাইরাস: লকডাউনের পর আবার শুরু হচ্ছে জার্মান ফুটবল

 

নিউটার্ন ডেস্ক :

করোনাভাইরাস মহামারির পর আজ থেকে আবার শুরু হচ্ছে জার্মানির শীর্ষস্থানীয় ফুটবল লিগ বুন্দেসলিগার খেলা।

শনিবার বুন্দেসলিগার ৬টি খেলা হবে, তার মধ্যে বিশেষ আকর্ষণীয় বলে মনে করা হচ্ছে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড এবং শালকের মধ্যেকার ম্যাচটি।

কারণ, এটি হচ্ছে ‘ডার্বি’ – অর্থাৎ একই অঞ্চলের দুই ক্লাবের মধ্যেকার ম্যাচ। জার্মান ফুটবলে পশ্চিমাঞ্চলীয় রুর এলাকার এই দু্ই ক্লাবের মধ্যেকার প্রতিদ্বন্দ্বিতা ও রেষারেষির ইতিহাস বহু পুরোনো ।

তবে এ দুদলের ফুটবলভক্তদের এবার বাড়িতে বসেই খেলা দেখতে হবে – কারণ সব খেলাই হবে দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে।

ইউরোপের প্রধান ফুটবল লিগগুলোর মধ্যে জার্মানির বুন্দেসলিগাই প্রথম – যা করোনাভাইরাস সংক্রমণজনিত লকডাউনের পর আবার চালু হলো।বিবিসি

ফুটবল ফ্যানরা যাতে স্টেডিয়ামে ঢুকতে না পারে বা কোনরকম গোলমাল না বাধায়, সে জন্য স্টেডিয়ামগুলোতে পুলিশ মোতায়েন করা হচ্ছে।

ভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে খেলার সময় কঠোর স্বাস্থ্যবিধি আরোপ করা হয়েছে।

খেলোয়াড়দের সবার কোভিড-১৯ পরীক্ষা করা হয়েছে, তা ছাড়া প্রতিটি দলই কোয়ারেন্টাইনে ছিল – তারা শনিবার মাঠে নামার আগ পর্যন্ত এক সপ্তাহ ধরে হোটেলে থেকেছে এবং সেখান থেকেই ট্রেনিং করতে গিয়েছে।

আশা করা হচ্ছে খেলার সময়টুকুর বাইরে খেলোয়াড়রাও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখবে।

তবে উদ্বেগ আছে যে খেলাকে কেন্দ্র করে হয়তো লকডাউন-বিরোধীরা বিক্ষোভ দেখাতে রাস্তায় নামতে পারে।

ম্যাচের দিন খেলোয়াড়, স্টাফ এবং ক্লাব কর্মকর্তা মিলে প্রায় ৩০০ লোক থাকবে স্টেডিয়ামে।

ইতালির সরকারও ধীরে ধীরে করোনাভাইরাসজনিত লকডাউন থেকে বেরিয়ে আসছে, এবং আজ সরকার এক ডিক্রি জারি করেছে যে আগামী ৩ জুন থেকে অন্য দেশ ও ইতালির মধ্যে যাতায়াত আবার শুরু হবে।

এ ছাড়া ১৮ মে থেকে দোকান ও রেস্তোরাঁগুলো খুলে দেয়া হবে। গত ৪ মে থেকে পার্ক ও কলকারখানাগুলো খুলেছে।

ইতালিতে করোনাভাইরাস সংক্রমণে ৩১ হাজার ৬০০-রও বেশি লোকের মৃত্যু হয়েছে ।

যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রিটেনের পর এটি কোভিড-১৯এ তৃতীয় সর্বোচ্চ মৃত্যুর সংখ্যা।

ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি বলছেন, তার সরকার রমজানের পরই দেশটির মাজারগুলোর চত্বর খুলে দেবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

তিনি বলেন, রমজানের পর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রোটোকল অনুযায়ী খেলাধূলার কার্যক্রমও শুরু হবে।

ইরানে এ পর্যন্ত ১ লাখ ১৬ হাজার ৬৩৫ জন লোক কোভিড-১৯ পজিটিভ বলে সনাক্ত হয়েছে এবং মৃত্যু হয়েছে ৬ হাজার ৯০২ জনের।

রুহানি বলেন, স্বাস্থ্য সংক্রান্ত নির্দেশনাগুলোর আওতার ভেতরে থেকেই মাজারগুলোর চত্বর খুলে দেয়া হবে, তবে এগুলোর প্রবেশতোরণগুলো বন্ধ ধাকবে।

এ ছাড়া ৬ জুন থেকে দেশটির বিশ্ববিদ্যালয়গুলোও কাজ শুরু করবে।

113 Shares