Home » জাতীয় » খাগড়াছড়ি’র মাটিযাঙ্গা পৌরসভা নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা মেনে নেয়া হবেনা- জোন অধিনায়ক

খাগড়াছড়ি’র মাটিযাঙ্গা পৌরসভা নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা মেনে নেয়া হবেনা- জোন অধিনায়ক

লোকমান হোসেন, খাগড়াছড়ি : খাগড়াছড়ি জেলার মাটিরাঙ্গা পৌরসভা নির্বাচন পরবর্তী যেকোন ধরনের সংঘাত মেনে নেয়া হবে না উল্লেখ করে মাটিরাঙ্গা জোনের জোন অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. মোহসীন হাসান বলেছেন, সেনাবাহিনী পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে। যদি কোন ব্যক্তি বা গোষ্ঠি নির্বাচনকে পুঁজি করে কোন সংঘাত সহিংসতার চেষ্টা করে তাদেরকে কঠোর হাতে দমন করা হবে। এসময় নির্বাচনে বিজয়ী ও পরাজিত প্রার্থীদের সংঘাত পরিহার করে সহাবস্থান নিশ্চিত করতে সকলকে নাগরিক দায়িত্ব পালনেরও আহবান জানান তিনি।

আরও পড়ুনঃ

খাগড়াছড়ি ৬ষ্ঠ পৌর পরিষদ, নবনির্বাচিত পৌর ৭তম পরিষদের কাছে দায়িত্ব হস্তান্তর করেন।

খাগড়াছড়ি সদরসহ  আগুনে পুড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে চেক বিতরণ

 

বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি ) বেলা ১১টার দিকে মাটিরাঙ্গা জোন সদর সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত মাসিক নিরাপত্তা সম্মেলন ও মতবিনিময় সভায় সভাপতির বক্তব্যে মাটিরাঙ্গা জোনের জোন অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. মোহসীন হাসান এসব কথা বলেন। একটি শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমুখর নির্বাচনের পর সহাবস্থান ব্যাহত করে বা সংঘাত সৃষ্টি করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কোন ধরনের উস্কানিমূলক পোস্ট না দেয়ারও আহবান জানান তিনি। সাম্প্রতিক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের প্রসঙ্গ তুলে ধরে তিনি সকলকে সড়ক দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি রোধে যানবাহন আইন মেনে চলার আহবান জানান ।

প্রায় দুই ঘণ্টা ব্যাপী মতবিনিময় সভায় মাটিরাঙ্গার মো: রফিকুল ইসলাম, গুইমারা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান উশ্যেপ্রু মারমা, মাটিরাঙা উপজেলা নির্বাহী অফিসার তৃলা দেব, মাটিরাঙ্গা পৌরসভার মেয়র মো. শামছুল হক, মাটিরাঙ্গা থানার পুলিশ পরিদর্শক মো. শাহনুর আলম, ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ আলী, ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর এমরান হোসেন, ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. শহিদুল ইসলাম সোহাগ, ৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো: মোস্তফা, ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. আব্দুল খালেক ও ২নং ওয়ার্ডের পরাজিত কাউন্সিলর প্রার্থী মো. খোরশেদ আলম সুমন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে মাটিরাঙ্গা জোনের জোনাল স্টাফ অফিসার মেজর মো. আরিফুর দৌলা জি, মাটিরাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মো. খায়রুল আলম ও মাটিরাঙ্গা সরকারি ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ প্রশান্ত কুমার ত্রিপুরা ছাড়াও মাটিরাঙ্গা পৌরসভার কাউন্সিলরবৃন্দ, হেডম্যান-কার্বারী, সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

0 Shares