Home » জাতীয় » চা বাগান থেকে উদ্ধার হলো মাথা

চা বাগান থেকে উদ্ধার হলো মাথা

তেতুলিয়া (পঞ্চগড়) প্রতিনিধি:
তেঁতুলিয়ায় মাথাবিহীন লাশ উদ্ধারের ৫দিন পর চা বাগান থেকে মাথা উদ্ধার করল পুলিশ। মঙ্গলবার বেলা ১১টায় পঞ্চগড়-বাংলাবান্ধা মহাসড়কের ধারে আজিজনগর গ্রামের নুরুল ইসলাম নুরুর চা বাগান থেকে মাথাটি উদ্ধার করা হয়।
জানাযায়, চা বাগান মালিক সদর ইউপির আজিজনগর গ্রামের নওশের আলীর ছেলে নুরুল ইসলাম নুরু সকাল ৯ টার দিকে কাচা চা পাতা তুলতে বাগানে গেলে দুর্গন্ধ পান। গন্ধ শুঁকে খুঁজতে থাকেন কীসের গন্ধ! অনেক খোঁজাখুঁজির পর দেহবিহীন একটি মাথা দেখতে পান। তাৎক্ষণিক থানা পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে মাথা উদ্ধার করে পঞ্চগড় মর্গে পাঠায় । এ খবর মুহূর্তের মধ্যে এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে মাথাটি দেখতে হাজার হাজার উৎসুক জনতা সেখানে ভিড় জমায়।
এসময় পঞ্চগড় পুলিশ সুপার মোহামদ ইউসুফ আলী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুদর্শন কুমার রায় সহ মডেল থানা পুলিশ, ডিবি পুলিশের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
নুরুল ইসলাম নুরু জানান, তাৎক্ষণিক বিষয়টি আমার বড় আলাউদ্দিনকে জানালে সে উপজেলা চেয়ারম্যাকে অবহিত করে। তিনি থানা পুলিশকে খবর দেয়।
গত ১৮ অক্টোবর তিরনইহাট ইউপির ব্রহ্মতোল গ্রামের ঝিকধুয়া খালের স্লুইস গেটের ডোবা থেকে উদ্ধার করা লাশেরই মাথা হতে পারে বলে প্রাথমিক ধারনা করছে পুলিশ। এ ঘটনায় এসআই শাহাদাত হোসেন বাদী হয়ে হত্যার অভিযোগে অজ্ঞাতনামা নামে মামলা করেন। মামলার পর এ হত্যাকা-ে জড়িত সন্দেহে তিরনইহাট ইউনিয়নের যোগীগছ গ্রামের আজিমুদ্দিনের পুত্র রুবেল ও ব্রহ্মতোল গ্রামের নাজিম উদ্দীনের পুত্র আব্দুল বারেককে আটক করে ডিবি পুলিশ।
মাথাবিহীন লাশটি নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জ উপজেলার লক্ষী নারায়নপুর গ্রামের আব্দুর রউফ বলে সনাক্ত করে ডিবি পুলিশ।
এব্যাপারে তেতুলিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ভার) আবু সাঈদ চৌধুরী জানান, দেহবিহীন মাথাটি ৫ দিন আগে মাথাবিহীন লাশেরই হতে পারে এমনটিই ধারনা করা যাচ্ছে। তবে উদ্ধারকৃত মাথা ও দেহ ডিএনএ পরীক্ষা এবং তদন্ত ছাড়া নিশ্চিত ভাবে বলা যাচ্ছে না।

0 Shares