Home » প্রধান খবর » জুয়ার টাকা দিতে অস্বীকার করায় স্ত্রীর দুই হাত ভাঙলেন স্বামী!

জুয়ার টাকা দিতে অস্বীকার করায় স্ত্রীর দুই হাত ভাঙলেন স্বামী!

নিজস্ব প্রতিবেদক, নিউটার্ন.কম : বাবার বাড়ি থেকে জুয়া খেলার টাকা এনে দিতে অস্বীকার করায় দুই সন্তানের জননী ছোকানুর বেগমকে পিটিয়ে (৪০) দু’হাত ভেঙ্গে দিয়েছে স্বামী মজিবর মোল্লা।

রোববার সকালে বরগুনার আমতলী উপজেলার উত্তর টিয়াখালী গ্রামে এমন ঘটনা ঘটে। আহত গৃহবধূকে স্বজনরা উদ্ধার করে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছেন।

জানা গেছে, গত ৩০ বছর পূর্বে মজিবুর রহমান মোল্লার সঙ্গে ছোকানুর বেগমের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই স্বামী মজিবর মোল্লা জুয়া খেলে আসছে বলে এমন অভিযোগ স্ত্রী ছোকানুর বেগমের।

১৯৯৫ সালে ছোকানুরের বাবা ধলু তালুকদার মারা যান। এরপরই নেমে আসে ছোকানুরের জীবনে নির্যাতন। যখনই জুয়া খেলার টাকার প্রয়োজন হয় তখনই স্ত্রী ছোকানুর বেগমকে বাবার বাড়ির জমি বিক্রি করে টাকা এনে দিতে চাপ প্রয়োগ করে সে। টাকা না এনে দিলেই নামে অমানুষিক নির্যাতন এমন অভিযোগ স্ত্রী ছোকানুরের।

দু’সন্তানের মুখের দিকে তাকিয়ে সে বাবার বাড়ি থেকে টাকা এনে দেন। গত মাসে ছোকানুর ২০ হাজার টাকা বাবার বাড়ি থেকে এনে দিয়েছেন। ওই টাকা জুয়া খেলে হারিয়ে ফেলে।

রোববার সকালে স্ত্রীকে বাবার বাড়ি থেকে আবার জমি বিক্রি করে টাকা এনে দিতে বলে মজিবর। স্ত্রী ছোকানুর ওই টাকা এনে দিতে অস্বীকার করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মজিবর তাকে (স্ত্রী) বাঁশের লাঠি দিয়ে বেধরক মারধর করে।

প্রাণরক্ষায় প্রতিবেশী আমিনুলের ঘরে আশ্রয় নেন ওই গৃহবধূ। ওই ঘরে উঠে মজিবর ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাকে মেরে ফেলার চেষ্টা করে। কিন্তু ওই ঘরের লোকজনের প্রচেষ্টায় ছোকানুর জীবন রক্ষা পায় বলে প্রত্যক্ষদর্শী আমিনুল ও সোবাহান বিশ্বাস জানিয়েছেন।

স্বামী মজিবরের মারধরে তার দু’হাত ভেঙ্গে গেছে। খবর পেয়ে স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছেন।

আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, আহত ছোকানুরের দুই হাত ভেঙ্গে গেছে। এ ছাড়াও তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখমের চিহ্ন রয়েছে। তার চিকিৎসা চলছে।

আহত ছোকানুর বেগম বলেন, বিয়ের ৩০ বছর ধরেই টাকার জন্য মারধর করে আসছে। সন্তানের মুখের দিকে তাকিয়ে নীরবে সহ্য করেছি।

তিনি আরও বলেন, বাবার মৃত্যুর পর থেকেই আমার স্বামী আমাকে বাবার বাড়ির জমি বিক্রি করে টাকা এনে দিতে বলে। টাকা না এনে দিলেই আমার ওপর অমানুষিক নির্যাতন চালায়। বিয়ের ৩০ বছরে অন্তত ২ লাখ টাকা এনে দিয়েছি। সব টাকা জুয়া খেলে হারিয়ে ফেলেছে। জুয়া খেলে টাকা হারিয়ে ফেললেই পুনরায় টাকা এতে দিতে বলে।

গত মাসেও বাবার বাড়ি থেকে ২০ হাজার টাকা এনে দিয়েছি। ওই টাকাও হারিয়ে ফেলেছে। এখন আবার টাকা এনে দিতে বলে। এ টাকা এনে দিতে আমি অস্বীকার করায় আমাকে মারধর করে দু’হাত ভেঙ্গে দিয়েছে।

আহত ছোকানুরের অষ্টম শ্রেণিতে পড়ুয়া কন্যা বলে, মা টাকা এনে না দিলেই বাবা মাকে মারধর করে।

আমতলী থানার ওসি মো. আবুল বাশার বলেন, খবর পাইনি। পুলিশ পাঠিয়ে খোঁজ-খবর নিচ্ছি। তিনি আরও বলেন, অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নিউটার্ন.কম/এআর

0 Shares