Home » আন্তর্জাতিক » নিউ ইয়র্ক থেকে সিডনি, ২০ ঘণ্টার দীর্ঘতম উড়ান!

নিউ ইয়র্ক থেকে সিডনি, ২০ ঘণ্টার দীর্ঘতম উড়ান!

সমুদ্রপৃষ্ঠের ১০ হাজার ৯৭২ মিটার উপরে স্প্যানিশ গানের সঙ্গে একটু নেচে নিলেন তাঁরা। দেখলেন কয়েকটি ছবি। বেশ কয়েক বার পেটপুরে খাওয়াদাওয়া সারলেন চিংড়ি আর মাছের নানা পদ দিয়ে। অনেকটা সময় কাটাতে হবে যে! সৌজন্যে, কোয়ানটাসের কিউএফ৭৮৭৯। অস্ট্রেলিয়ার সংস্থাটি গত কাল পরীক্ষামূলক ভাবে দীর্ঘতম অসামরিক উড়ান চালালো।-এ নিউ ইয়র্ক থেকে শুরু করে ১৬,২০০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে সিডনি পৌঁছয় সেটি। যাত্রী-সহ বিরতিহীন ভাবে দীর্ঘতম উড়ানের কৃতিত্বে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সকে পিছনে ফেলে দিল কোয়ানটাস।

বিমানটি বোয়িং সংস্থার একটি আনকোরা ৭৮৭-৯ ড্রিমলাইনার। ৪০ জন যাত্রী, ১০ জন বিমানকর্মী এবং ৪ জন চালক-সহ পরীক্ষামূলক ভাবেই বিমানটি চালানো হয়। ২০২২ থেকে বাণিজ্যিক ভাবে এই উড়ান পরিষেবা চালুর পরিকল্পনা আছে সংস্থাটির।


কোয়ানটাস কর্তৃপক্ষ জানান, এই বিরতিহীন রুট চালু হলে যাত্রীদের অনেকটা সময় বাঁচবে। তবে আকাশে এতটা পথ পাড়ি দিতে যাত্রীদের ক্ষেত্রেও যেমন বেশ কিছু সমস্যা দেখা দিতে পারে, বিমানের ক্ষেত্রেও তাই। ঠিক কী কী সমস্যা হতে পারে এবং তার সমাধানই বা কী তা খতিয়ে দেখতেই এই পরীক্ষামূলক উড়ানটি চালানো হয় বলে জানিয়ে‌ছেন তাঁরা। ১৫টি সময়-অঞ্চলের উপর দিয়ে উড়েছে বিমানটি। ফলে ‘জেট-ল্যাগ’ একটা বড় সমস্যা। এর প্রভাব কিছুটা কমাতে উড়ানের প্রথম ৬ ঘণ্টা যাত্রীদের ঘুমোতে দেওয়া হয়নি।

এই পরীক্ষামূলক উড়ানে যাত্রী বলতে বেছে নেওয়া হয়েছিল সংস্থাটির বেশ কয়েক জন পুরনো যাত্রী, সংস্থার কিছু অফ-ডিউটি কর্মচারী, কয়েক জন গবেষক এবং সাংবাদিককে। ভার বেশি হলে উড়ানে আরও সময় লাগতে পারে এই আশঙ্কায় যাত্রী সংখ্যা সীমিত রাখা হয়েছিল। সকলকেই বিজ়নেস ক্লাসের আসনে বসানো হয়। তবে বিমানের ভারসাম্য বজায় রাখতে সাধারণ আসনের জায়গাতে তাঁদের কিছুটা সময় কাটাতে বলা হয়েছিল।

নিউটার্ন.কম/RJ

0 Shares