Home » প্রধান খবর » নেত্রী নতুন ফ্রেশ ব্লাড চান : ওবায়দুল কাদের

নেত্রী নতুন ফ্রেশ ব্লাড চান : ওবায়দুল কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক, নিউটার্ন.কম : সম্মেলনের মাধ্যমে আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন স্বেচ্ছাসেবক লীগে বিশুদ্ধ রক্ত সঞ্চালন করতে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, ‘যারা বিতর্কিত, যাদের বিরুদ্ধে অপকর্মের অভিযোগ আছে, আমি আবারও বলছি তাদের বাদ দিতে হবে। নতুন ফ্রেশ ব্লাড আমরা চাই, আমাদের নেত্রী চান। এখানে যেন কোনো প্রকার বিতর্কিত ব্যক্তি, অনুপ্রেবেশকারী স্বেচ্ছাসেবক লীগের কোনো পর্যায়ের নেতৃত্বে স্থান না পায়, এ ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে।’

শুক্রবার বিকালে আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

ক্যাসিনো কর্মকাণ্ডে যুক্ত থাকার অভিযোগে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোল্লা মো. আবু কাওছারকে।

অন্যদিকে সম্মেলনের সব কর্মকাণ্ড থেকে বিরত থাকার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে সাধারণ সম্পাদক পংকজ নাথকে। এরই সংগঠনের আগামী জাতীয় সম্মেলনের প্রস্তুতি নিয়ে আলোচনা করতে এই বৈঠক ডাকা হয়।

এ সময় ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, ‘দল করলে দলের শৃঙ্খলা মেনে চলতে হবে। দু-চারজনের শৃঙ্খলা বিরোধী অপকর্মের জন্য গোটা প্রতিষ্ঠান দায়ী হতে পারে না। এই প্রতিষ্ঠানে অসংখ্য ত্যাগী নেতাকর্মী রয়েছে। যাদের অধিকাংশই অতীতে ছাত্রলীগ করেছে এবং দুঃসময়ে ছাত্রলীগ করে তারা স্বেচ্ছাসেবক লীগে এসেছে। এখানে কারও বিচ্যুতি ঘটলে, বিতর্কিত কর্মকাণ্ডে লিপ্ত হলে অবশ্যই তাদের নেতৃত্বে থাকার কোনো অধিকার নেই।’

তিনি বলেন, ‘দলের নিয়ম শৃঙ্খলা যারা মানেন না, পকেট ভারী করার জন্য তাদেরকে দলে টানবেন না। নিজেদের দল ভারী করার জন্য দলে বিতর্কিত ব্যক্তিদের অনুপ্রবেশ ঘটাবেন না। এই বিতর্কিত ব্যক্তিরা ভালোর চেয়েও খারাপই করে বেশি এবং দলের মধ্যে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চাইবে। সেই অবস্থায় এবার আমারা ক্লিন ইমেজের নেতৃত্ব এবার গড়ে তুলতে চাই। ক্লিন ইমেজের লিডারশিপ আমরা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলনের মাধ্যমে গড়ে দিতে চাই, স্বচ্ছ ভাবমূর্তির নেতাকর্মীরাই দায়িত্ব নেবে।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘যুবলীগ, কৃষকলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও জাতীয় শ্রমিক লীগ, এই চারটি সংগঠনের কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে গেছে। সাত বছরে আরও দুইটি কমিটি হতে পারত কমপক্ষে। সেখানে আরও একবার সম্মেলন হতে পারত। তাতে নতুন মুখ আসতে পারত। নয়া নেতৃত্ব সৃষ্টি হতে পারত কিন্তু সেটা হয়নি। এখন এবারের সম্মেলনের মধ্যে দিয়ে পুরানো অভিজ্ঞ মুখও থাকবে আবার নতুন মুখও এখানে আসতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলনের নিয়ে আমাকে নেত্রী যেভাবে নির্দেশ দিয়েছে, সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি গঠিত হয়েছে। এই প্রস্তুতি কমিটির মাধ্যমেই স্বেচ্ছাসেবক লীগের কর্মকাণ্ড পরিচালিত হবে। ’

১৬ নভেম্বর অনুষ্ঠিত সম্মেলনের সভাপতিত্ব করবেন সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক নির্মল গুহ এবং পরিচালনা করবেন সদস্য সচিব গাজী মেসবাউল হক সাচ্চু। সম্মেলনের প্রস্তুতি কমিটিতে সাবেক ছাত্রনেতাদের মধ্যে যারা যারা থাকতে চান তাদেরও রাখার নির্দেশ দেন ওবায়দুল কাদের।

বৈঠকে অন্যদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বান নির্মল গুহ, সদস্য সচিব গাজী মেজবাউল হোসেন (সাচ্চু), সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ সোহেল রানা টিপু, খায়রুল হাসান জুয়েল, সাজ্জাদ সাকিব বাদশা, দফতর সম্পাদক সালেহ মোহাম্মদ টুটুল প্রমুখ।

নিউটার্ন.কম/এআর

0 Shares