Home » জাতীয় » নেপালের সঙ্গে পিটিএ দ্রুত সইয়ে গুরুত্ব প্রধানমন্ত্রীর

নেপালের সঙ্গে পিটিএ দ্রুত সইয়ে গুরুত্ব প্রধানমন্ত্রীর

নিউজ ডেস্ক, নিউটার্ন.কম : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশ ও নেপালের মধ্যে ব্যবসা-বাণিজ্য জোরদারের অংশ হিসেবে প্রিফারেন্সিয়াল ট্রেড এগ্রিমেন্ট (পিটিএ) দ্রুত সই করার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন।

তিনি বলেন, পিটিএ দ্রুত বাস্তবায়ন করা গেলে দুই দেশ ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে ব্যাপক সুবিধা লাভ করবে। ১৮তম ন্যাম সম্মেলনের পাশাপাশি শনিবার নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শার্মা ওলির সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ কথা বলেন।

বৈঠকের পর পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

শহীদুল হক বলেন, দুই প্রধানমন্ত্রী যোগাযোগ, বন্দর সুবিধা এবং ব্যবসা-বাণিজ্য জোরদার করার বিষয়ে আলোচনা করেন।

বিবিআইএন (বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত এবং নেপাল) উদ্যোগ সম্পর্কে পররাষ্ট্র সচিব বলেন, এটির বাস্তবায়নে ভুটানের একটি সমস্যা রয়েছে। তবে, নেপাল এটির বাস্তবায়নে সম্মত হয়েছে। এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা ভারত ও নেপালের কাছে বিষয়টি উত্থাপন করেছি। এর মাধ্যমে বিবিআইএনকে আমরা কার্যকর করতে পারি।

পররাষ্ট্র সচিব বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখার বিষয়েও দুই প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে আলোচনা হয়। তারা বলেন, সবাই মিলেই দক্ষিণ এশিয়ায় শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে হবে।

এদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শনিবার সকালে আজাইরবাইজানের বাকু কংগ্রেস সেন্টারের প্ল্যানারি হলে ১৮তম ন্যাম সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে সাধারণ অধিবেশনে যোগ দেন। প্রধানমন্ত্রী এদিন বিকালে সম্মেলনের সমাপনী অধিবেশনেও যোগ দেন। সমাপনী অধিবেশনে বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধান এবং অংশগ্রহণকারী দেশের প্রতিনিধিরা বাকু ঘোষণা গ্রহণ করেন।

আজারবাইজানের শহীদদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শনিবার আজারবাইজানের শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। প্রধানমন্ত্রী বিকালে শহীদদের স্মৃতির উদ্দেশ্যে নির্মিত স্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রী কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন।

সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ ও পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হকসহ প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গীরা এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

নিউটার্ন.কম/এআর

0 Shares