Home » জাতীয় » পাহাড়ে বিশ্ববিদ্যালয় তৈরিতে বাধাদানকারীরা রেহাই পাবে না!

পাহাড়ে বিশ্ববিদ্যালয় তৈরিতে বাধাদানকারীরা রেহাই পাবে না!

 

রাঙামাটি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, যারা তিন পার্বত্য জেলায় স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় তৈরিতে বাধা দেয় সেসব কুচক্রী মহলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ মহলটি পার্বত্য জেলাগুলোতে রক্তপাত, চাঁদাবাজি, খুন, গুম করে অরাজক পরিস্থিতির সৃষ্টি করছে। তাদের দিন শেষ হয়ে এসেছে। তারা রেহাই পাবে না। তাদের জন্য ভবিষ্যতে ভয়ঙ্কর দিন অপেক্ষা করছে।

বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) রাঙামাটি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী মিলনায়তনে তিন পার্বত্য জেলার আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত দিনব্যাপী সভা শেষে বিকেলে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

অত্র অঞ্চলের ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আপনারা কোনো সন্ত্রাসীকে চাঁদা দেবেন না। এ অঞ্চলের মানুষের সব সমস্যার কথা শুনে আমি এখানে এসেছি। আমাদের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অনেক সক্ষমতা রয়েছে। কোস্টগার্ড, বিজিবি, পুলিশ অনেক বেশি শক্তিশালী। আমাদের বাহিনী বিশ্বের দরবারে প্রশংসা কুঁড়িয়েছে। তাই যেকোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করার সামর্থ্য তাদের রয়েছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল জানান, আমরা ধৈর্য্যর সঙ্গে কাজ করছি। প্রধানমন্ত্রীকে এসব ব্যাপারে জানানো হয়েছে। আমরা এ অঞ্চলে শান্তির সুবাতাস বয়ে দেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে কাজ করে যাচ্ছি।

তিনি বলেন, পার্বত্য অঞ্চলে এখন সাইবারক্রামই বেড়ে গেছে। এ কাজের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের ব্যাপারে অবহিত হয়েছি।

রাঙামাটি আসনের সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার, খাগড়াছড়ি আসনের সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, মহিলা সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য বাসন্তী চাকমা, স্বরাষ্ট্র সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দিন, পার্বত্য মন্ত্রণালয়ের সচিব মেসবাহুল ইসলাম, পুলিশের মহা-পুলিশ পরিদর্শক (আইজিপি) মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, বাংলাদেশ আনসার বাহিনীর মহা-পরিচালক মেজর জেনারেল কাজী শরীফ কায়কোবাদ উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়াও তিন পার্বত্য জেলার জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, পৌর মেয়র, উপজেলা চেয়ারম্যান, তিন পার্বত্য জেলার সার্কেল চিফসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ এবং রাজনৈতিক নেতারা বৈঠকে অংশ নেন।

নিউটার্ন.কম/RJ

0 Shares