Home » জীবনধারা » ফ্রান্স থেকে করোনা লিপি ২৮

ফ্রান্স থেকে করোনা লিপি ২৮

 

এক.
ফেসবুকে পাওয়া একটি ভিডিওতে দেখলাম– সিলেট শহরে একটি বন্ধ দোকানের সামনে একজন বিদেশি তরুণ পড়ে আছেন। তাঁকে হাসপাতালে নেওয়ার জন্য একজন অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে এসে রাস্তায় ভিড়করা সকলকে সাহায্য করার জন্য অনুরোধ করছেন। উপস্থিত সবাই বিদেশি তরুণকে করোনা রোগী ভেবে ভয় পাচ্ছেন। তাঁকে কেউ ধরতে চাচ্ছেন না।

অবশেষে সেই অচেতন তরুণকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হল। তারপরে কী হল? কেউ জানলে আমার উদ্বেগ কমে যেত।

দুই.
বাংলাদেশে করোনা মহামারি আকার নিতে পারেনি, কিন্তু আতঙ্ক চরম পর্যায়ে পৌঁছে গেছে।
করোনা ভাইরাস আক্রমণ করলে রোগী ধীরে ধীরে অসুস্থ হয়। কোনও রোগী চরম অসুস্থ হয়ে পড়লে তাঁর রাস্তায় আসার শক্তি থাকে না।
কত কারণে মানুষ আচমকা রাস্তায় এসে অচেতন হয়ে পড়তে পারে। করোনার ভয়ে কি মানুষের স্বাভাবিক বোধ বুদ্ধি মানবিকতা লোপ পেতে পারে? আমি জানি না।
আমি আপনি আমরা দেখছি কত সচেতন ব্যক্তি নিজ উদ্যোগে এবং প্রাতিষ্ঠানিক ও সাংগঠনিক তৎপরতায় এই চরম দুঃসময়ে মানুষের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন।
ক্রোনার চেয়েও লোভ গুজব আতঙ্ক খুব বেশি সংক্রমণপ্রবণ।
করোনা গুজব থেকে মুক্ত থাকা এখন সবচেয়ে জরুরি। গুজব রটছে করোনায় বাংলাদেশে পাঁচ থেকে বিশ লাখ মানুষ মারা যেতে পারে।
গুজব রটছে বাংলাদেশে কয়েক হাজার অসনাক্ত করোনা রোগী আছে।
করোনা যাঁকে ধরে তাঁর পক্ষে অসনাক্ত থাকা সম্ভব কিন্তু অপ্রকাশিত থাকা অসম্ভব। করোনা কোনও গোপন ব্যাধি নয়। কোনও ভাইরাসই চোখে দেখা যায় না, কিন্তু করোনা ভাইরাসের আক্রমণ ধীরে ধীরে নানান উপসর্গে প্রকট হয়ে ওঠে।
অতএব গুজবে কান দেবেন না। তবে মনে রাখা দরকার সামান্য একটু অসর্তকতায় করোনা আমাদের শরীরে আশ্রয় করতে পারি। একজন শরীরে আশ্রয় করে করোনা বহু জনের কাছে পৌঁছে যেতে পারে।

এই সময়ে তেলেভাজা জাতীয় শুকনো খাবার না খাওয়াই ভালো। সব সময় শরীর ও মন সুস্থ রাখা দরকার। মদ বিড়ি সিগারেট বাদ। ঘরে ঘরে শরবত হোক। লেবুর শরবত, যে কোনও ফলের রস এসবই চৈত্র মাসে শরীরের পক্ষে বেশি ভালো।

তিন.
আজ রাতে ইউরোপে ঘড়ির কাঁটা ছয় মাসের জন্য এক ঘণ্টা এগিয়ে গেল। ফ্রান্সের সঙ্গে এখন বাংলাদেশের সময়ের ব্যবধান দাঁড়াল চার ঘণ্টা। আলেসে এখন ঠিক রাত সাড়ে তিনটা আর ঢাকায় এখন ২৯শে মার্চ সকাল সাড়ে সাতটা।

আজ রবিবার রাতে বাংলাদেশ সময় রাত আটটায় আমি ফেসবুক লাইভে আসব। করোনার কাল নিয়ে কথা বলব, আর হ্যাঁ কবিতাও শোনাব। যাঁরা সময় পাবেন তাঁদেরকে আমার সঙ্গে পাব বলে আশা রাখি। আজ শেষ রাতে ঘুমাতে যাচ্ছি। ঘুম মানেই আরেকটি দিনের জন্য ঘুমন্ত অপেক্ষা।

সবার মঙ্গল হোক।

রবিশঙ্কর মৈত্রী
২৮শে মার্চ ২০২০
আলেস, ফ্রান্স

16 Shares