Home » আন্তর্জাতিক » বাংলাদেশের কোচ-ক্রিকেটার সবাই মাস্ক পরে অনুশীলনে!

বাংলাদেশের কোচ-ক্রিকেটার সবাই মাস্ক পরে অনুশীলনে!

 

আমরা রাজধানী ঢাকার বাতাসকে খারাপ বলি সেটা ভুল নয়। কিন্তু ভারতের রাজধানী দিল্লিতে যে ভয়াবহ বায়ু দুষণের কবলে পড়তে হয়েছে টাইগার ক্রিকেটারদের, তা বলে বোঝানো যাবে না। গত কয়েক বছর ধরে শীতকাল এলেই দিল্লির বাতাসে দূষণের পরিমাণ আশ্চর্যজনকভাবে বেড়ে যায়। এই বছর অবশ্য শীতকাল আসার আগেই দূষণ বেড়েছে। এমন অবস্থায় মাস্ক লাগিয়ে অনুশীলন করে যাচ্ছেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। কোচদেরও একই অবস্থা।

গতকাল বৃহস্পতিবার অনুশীলনের প্রথম দিনে কিছু সময়ের জন্য মাস্ক পরেছিলেন জাতীয় দলের ওপেনার লিটন দাস। তার এই ছবি নিয়ে ভারতে তোলপাড় শুরু হয়। দূষিত পরিবেশে ম্যাচ আয়োজন করে ক্রিকেটারদেরকে কেন বিপদের মুখে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে- এমন প্রশ্ন তুলেছেন পরিবেশবিদরা। ভারতের সাবেক ওপেনার এবং বর্তমান বিজেপি সাংসদ গৌতম গম্ভীরও এই ম্যাচ আয়োজনের বিপক্ষে। কিন্তু বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী তার সিদ্ধান্তে অনড়।

জাতীয় দলের প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো এবং স্পিন বোলিং কোচ ড্যানিয়েল ভেট্টরিও মাস্ক পরতে বাধ্য হয়েছেন। ছবি : এএফপি

আজ শুক্রবার সকাল থেকেই ফিরোজ শাহ কোটলায় অনুশীলনে নামে টাইগাররা। তাদের সবার মুখেই মাস্ক বাঁধা ছিল। শুধু ক্রিকেটাররা নন, প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো এবং স্পিন বোলিং কোচ ড্যানিয়েল ভেট্টরিও মাস্ক পরে শিষ্যদের নির্দেশনা দিয়ে গেছেন। পরিস্থিতি এমন যে, ক্যামেরার লেন্স পর্যন্ত অস্বচ্ছ হয়ে যাচ্ছিল দূষিত বাতাসে। এর মাঝেই মাস্ক পরে ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং প্র্যাকটিস করে গেছেন সৌম্য, আল-আমিন, ইলিয়াস সানিরা।

অন্যদিকে কোনো মাস্ক ছাড়াই অনুশীলন করতে দেখা গেছে রোহিত শর্মাদের। তাদের প্রধান কোচ রবি শাস্ত্রীও মাঠে আসেন মাস্ক ছাড়াই। আসলে ভারতীয়রা এই পরিবেশে অভ্যস্ত। যে কারণে দিল্লিতে পা রেখেই ভারত অধিনায়ক রোহিত অবশ্য বলেছিলেন, ‘এখানে আমরা কোনো সমস্যা অনুভব করছি না। এখানে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে যখন টেস্ট খেলেছিলাম, তখন কোনো সমস্যা হয়নি। ঠিক কী আলোচনা হচ্ছে, তা জানা নেই। আর আমি কোনো সমস্যাও দেখছি না।

নিউটার্ন.কম/AR

13 Shares