Home » Uncategorized » বাড়ি সারাই করতে গিয়ে দেয়ালের ভিতর মিলল পঞ্চাশের দশকের ফ্রেঞ্চ ফ্রাই

বাড়ি সারাই করতে গিয়ে দেয়ালের ভিতর মিলল পঞ্চাশের দশকের ফ্রেঞ্চ ফ্রাই

 

শিকাগো থেকে কিছু দূরে নিজেদের ১৯৫৯ সালের বাড়ি সারাইয়ের কাজ করছিলেন রব আর গ্রেসি জোনস্‌। হঠাৎ দেওয়ালের মধ্যে থেকে বেরোয় আলুভাজা।
আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

ঠাণ্ডা ফ্রেঞ্চ ফ্রাইস স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। পুরনো, ঠাণ্ডা ফ্রেঞ্চ ফ্রাইস তো ভয়ঙ্কর!

আমেরিকার ইলিনয়ের একটি বাড়ির দেয়াল ভাঙতেই তেমন সত্তর বছরেরও বেশি পুরনো ঠাণ্ডা ফ্রেঞ্চ ফ্রাইস বেরোল। তা-ও আবার ম্যাকডোনাল্ডসের প্যাকেটে!

 

শিকাগো থেকে কিছুটা দূরে নিজেদের ১৯৫৯ সালের ক্রিস্টাল লেকের বাড়ি সারাইয়ের কাজ করছিলেন রব আর গ্রেসি জোনস্‌। হঠাৎই দেয়ালের মধ্যে থেকে বেরোয় আলুভাজা। তা-ও আবার ম্যাকডোনাল্ডসের।

গ্রেসি বলেন, ‘‘রব শৌচাগারের একটি তাক খুলে নতুন কিছু লাগাচ্ছিল। হঠাৎ দেখে কাপড়ে মোড়ানো কী জানি একটা বেরিয়ে এল।’’

তখনও ওই দম্পতি ভাবতে পারেননি যে কয়েক দশক পুরনো ফাস্ট ফুড আবিষ্কার করবেন তারা। গ্রেসি বলেন, ‘‘প্রথমে আমরা ভাবছিলাম পুলিশে খবর দেয়া জরুরি কি না। হয়তো পুরনো কোনও অপরাধের ঘটনা এ ভাবে চাপা দেয়া হয়েছে!’’ তার পর সেই কাপড় খুলে ম্যাকডোনাল্ডসের প্যাকেট দেখে স্বস্তি পান দম্পতি। দেখেন একটি প্যাকেটে খানিকটা ফ্রেঞ্চ ফ্রাই রাখা আছে।

এর পর প্যাকেটটি তারা রান্নাঘরে নিয়ে যান। ভাল ভাবে পরীক্ষা করে দেখেন সবটা। তাতে আধ খাওয়া আলুভাজার সঙ্গে রয়েছে দু’টি হ্যামবার্গারের র‌্যাপারও।

এর পরেই ম্যাকডোনাল্ডসের লোগো পরীক্ষা করে ওই দম্পতি দেখেন, তা ব্যবহার করা হত ১৯৫৫-৬১ সাল পর্যন্ত। খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন, সে একালায় প্রথম ম্যাকডোনাল্ডস খুলেছিল ১৯৫৯ সালে। আর ওই বাড়িটিও সেই সালেই তৈরি।

গ্রেসি বলেন, ‘‘আমরা দেখে অবাক হয়েছি, আলুভাজা সব একেবারে মুচমুচে রয়েছে। এমন ভাবেই যত্ন করে রাখা ছিল। খানিকটা বাদমি হয়ে গিয়েছে বটে, কিন্তু তা ছাড়া আর কিছুই বদলায়নি প্রায়।’’

‘ঐতিহাসিক’ ফ্রেঞ্চফ্রাইসের প্যাকেট যদি কেউ কিনতে চান, তা বিক্রি করতে রাজি দম্পতি। খবর দেয়া হয়েছে ম্যাকডোনাল্ডসেও।

0 Shares