Home » আন্তর্জাতিক » রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ: রাশিয়ার তেল, সেনা কর্মকর্তা ও টিভির ওপর নতুন নিষেধাজ্ঞার পরিকল্পনা ইইউর

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ: রাশিয়ার তেল, সেনা কর্মকর্তা ও টিভির ওপর নতুন নিষেধাজ্ঞার পরিকল্পনা ইইউর

 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

ইউরোপিয়ান কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভন ডের লেয়েন রাশিয়ার ওপর নতুন কিছু নিষেধাজ্ঞার প্রস্তাবনা তুলে ধরেছেন, যা ইউরোপীয় ইউনিয়নের অনুমোদনের অপেক্ষায় আছে।

রাশিয়ার ওপর ষষ্ঠ দফার এ প্যাকেজে চারটি আলাদা ধরণের নিষেধাজ্ঞার কথা বলা হয়েছে। এতে ইউক্রেনের বুচা ও মারিউপোলে ‘যুদ্ধাপরাধের’ সাথে জড়িত সামরিক কর্মকর্তাদের টার্গেট করা হয়েছে।বিবিসি

এছাড়া রাশিয়ার সবচেয়ে বড় ব্যাংক এসবার ব্যাংককে সুইফট থেকে বিচ্ছিন্ন করার পরিকল্পনাও আছে এ প্রস্তাবে।

ইসি প্রেসিডেন্ট আরো বলেন, ইইউ’তে কেবল, স্যাটেলাইট ও ইন্টারনেটে তিনটি রুশ রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশনের অনুষ্ঠান সম্প্রচার বন্ধ করে দেয়া হবে।

 

 

তবে রাশিয়া থেকে ইউরোপে তেল আমদানির ওপর নিষেধাজ্ঞার কথাও বলা হয় – যা অনুমোদিত হলেও কার্যকর হবে চলতি বছরের শেষ নাগাদ। উরসুলা ভন ডের লেয়েন বলেন, “এটা সহজ নয়, কিন্তু এটাই করতে হবে”।

তিনি বলেন, ছয় মাসের মধ্যে রাশিয়ার অপরিশোধিত তেল আমদানি বন্ধ হবে, আর পরিশোধিত তেল বন্ধ হবে ২০২২ সালের শেষ নাগাদ।

এর বাইরে ৫৮ জন রাশিয়ানকে নতুন করে নিষেধাজ্ঞার আওতায় আনার পরিকল্পনা নিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

তবে রাশিয়া থেকে গ্যাস আমদানির প্রশ্নটি নিয়ে নতুন পরিকল্পনায় কিছু বলা হয়নি।

 

আযভস্টাল গোলাবর্ষণে আহত ৫০০

মারিউপোলের আযভস্টাল ইস্পাত কারখানার ভেতর থেকে এক ব্যক্তি বিবিসির সাথে কথা বলেছেন।

তিনি জানান, কারখানা কমপ্লেক্সের ভেতরে অন্তত ৫শ আহত ব্যক্তি চিকিৎসা নিচ্ছেন।

এর মধ্যে দুশো জনের অবস্থা খুবই খারাপ এবং যথাযথ চিকিৎসার অভাবে আহতদের অবস্থা দিন দিন খারাপ হচ্ছে।

তিনি বলেন সেখানে খাদ্য, পানি ও ওষুধের তীব্র সংকট চলছে এবং হাসপাতালের একটি অংশের ওপর রাশিয়ান বাহিনী বোমাবর্ষণ করেছে।

তবে এ অবস্থার মধ্যেই সেখানে থাকা যোদ্ধারা লড়াই চালিয়ে যাবার কথা জানিয়েছেন।

 

রাশিয়া বলছে ইউরোপ তেল কিনবে
রাশিয়ার একজন কর্মকর্তা বলেছেন, তার ধারণা ইউরোপের দেশগুলো তৃতীয় দেশের মাধ্যমে রাশিয়া থেকে তেল সংগ্রহ করবে।

সিনিয়র এমপি ভ্লাদিমির ডযাবারভ বলেছেন, “তারা আমাদের কাছ থেকে তেল কিনবে না বলছে । ভালো – কিনো না। আমরা জোর করবো না”।

“তোমরা এখনো কিনবে এবং তৃতীয় দেশের মাধ্যমে। আমাদের তেল একই থাকবে, শুধু দাম বাড়বে”।

 

মারিউপোল থেকে আরও লোকজন সরানো হলো
সেখানকার আঞ্চলিক গভর্নর জানিয়েছেন যে আরও বেসামরিক নাগরিক মারিউপোল ছেড়েছে।

তিনি জানান যে জাতিসংঘ ও রেডক্রসের সহায়তায় এসব ব্যক্তি ওই এলাকা থেকে সরে গেছে। তার দেয়া তথ্য অনুযায়ী ইউক্রেন-নিয়ন্ত্রিত এলাকা থেকে সরিয়ে লোকজনকে আযভ অঞ্চলে নেয়া হয়েছে।

0 Shares