Home » অর্থনীতি » সঙ্কট মেকাবেলায় উদ্যোক্তাদের নতুন ‘প্ল্যাটফর্ম’

সঙ্কট মেকাবেলায় উদ্যোক্তাদের নতুন ‘প্ল্যাটফর্ম’

 

নিউটার্ন ডেস্ক :

কোভিড-১৯ মহামারীর অভিঘাতে অর্থনৈতিক সঙ্কট মোকাবেলার কৌশল ঠিক করতে ‘রিসারজেন্ট বাংলাদেশ’ নামে নতুন একটি ‘প্ল্যাটফর্ম’ গড়ে তোলার ঘোষণা দিয়েছেন একদল ব্যবসায়ী-উদ্যোক্তা।

কঠিন এই বিশ্ব পরিস্থিতিতে বেসরকারি খাতের সুরক্ষা এবং অর্থনীতিতে গতি আনতে করণীয় নির্ধারণে এই প্ল্যাটফর্ম কাজ করবে বলে উদ্যোক্তারা জানিয়েছেন।

উদ্যোক্তাদের একজন মেট্রোপলিটান চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (এমসিসিআই) সভাপতি নিহাদ কবির বলেন, “সবাই মিলে একসঙ্গে কাজ করার জন্যই আমরা এই প্ল্যাটফর্মটি গঠন করেছি। আমরা সবাই জানি, একটা মহাসঙ্কটের মধ্যে আছি আমরা। কতদিনে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে? কি হবে? কেউ কিছু জানি না। সব কিছুই অনিশ্চিত।

“এই কঠিন পরিস্থিতিতে সরকার ও বেসরকারি খাত মিলে কীভাবে পরিস্থিতি মোকাবেলা করা যায় তার কৌশল ঠিক করতেই এই প্ল্যাটফর্ম।”

ঢাকা চেম্বার থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে বাংলাদেশের সামগ্রিক অর্থনীতি, বিশেষ করে বেসরকারি খাতের ব্যবসা-বাণিজ্য চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে। এই কঠিন বাস্তবতা থেকে উত্তরণ এবং বেসরকারি খাতের গতিশীলতা পুনরুদ্ধারে করণীয় নির্ধারণের লক্ষ্যে এই প্ল্যাটফর্ম যাত্রা শুরু করল।

দেশের শীর্ষ স্থানীয় চারটি বাণিজ্য সংগঠন ও একটি বেসরকারি খাত ভিত্তিক অর্থনৈতিক ‘থিংক ট্যাংকের’ সমন্বয়ে ‘রিসারজেন্ট বাংলাদেশ’ মঙ্গলবার থেকে কার্যক্রম শুরু করেছে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

সংগঠনগুলো হল- মেট্রোপলিটান চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ -এমসিসিআই, ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ -ডিসিসিআই, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ-সিএসই, বিজনেস ইনিশিয়েটিভ লিডিং ডেভেলপমেন্ট-বিল্ড এবং পলিসি এক্সচেঞ্জ।

এই প্ল্যাটফর্ম বাংলাদেশের অর্থনীতির সার্বিক উত্তরণের লক্ষ্যে যে সব কর্মকাণ্ড পরিচালনা করবে, তারমধ্যে রয়েছে-

>> বেসরকারি খাতে করোনাভাইরাসের প্রকৃত প্রভাব নিরূপণে প্রণালীবদ্ধ মূল্যায়ন পরিচালনা এবং কোভিড-১৯ প্রাদুর্ভাব থেকে অর্থনীতির উত্তরণের কৌশল প্রণয়ন।

>> জাতীয় অর্থনীতি পুনরুদ্ধার কৌশল নিরূপণে সরকারের কাছে সুসংগঠিত তথ্য-উপাত্তভিত্তিক সুপারিশমালা পাঠানো।

>> সরকারি প্রয়োজনীয় সহায়ক নীতিমালা প্রণয়নের স্বার্থে সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্বভিত্তিক আলোচনার আয়োজন করা এবং বেসরকারি খাতে গতিশীলতা পুনরুদ্ধার প্রক্রিয়াকে অনুপ্রাণিত করা। এ বিষয়ে বাজেট প্রক্রিয়ায় সংশ্লিষ্ট নীতিসহায়তামূলক প্রস্তাব পেশ করা। কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে যেসব ক্ষুদ্র ও একক মালিকানার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বিপাকে পড়েছে, তাদের প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রাপ্তির লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট মহলে অভিমত তুলে ধরা।

এছাড়া উৎপাদন খাত, সেবা খাত, আন্তর্জাতিক বাণিজ্য/রপ্তানি, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প (এসএমই), আর্থিক খাত, বেসরকারি বিনিয়োগ এবং কৃষি খাতের ওপর বিশ্লেষণাত্মক নীতিসহায়তা এবং পলিসি ডায়ালগ আয়োজন করবে ‘রিসারজেন্ট বাংলাদেশ’।

এই প্ল্যাটফর্ম চলবে একটি স্টিয়ারিং কমিটির দিক-নির্দেশনায়। কমিটির সদস্যরা হলেন, লেদার ফুটওয়্যার অ্যান্ড গুডস ম্যানুফেকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের উপদেষ্টা এমসিসিআই’র সাবেক সভাপতি সৈয়দ নাসিম মঞ্জুর, এমসিসিঅই’র বর্তমান সভাপতি নিহাদ কবির, ঢাকা চেম্বারের সভাপতি শামস মাহমুদ, বিল্ডের চেয়ারম্যান আবুল কাসেম খান, সিএসই’র চেয়ারম্যান আসিফ ইব্রাহীম এবং পলিসি এক্সচেঞ্জের চেয়ারম্যান মাশরুর রিয়াজ।

পলিসি এক্সচেঞ্জ এই প্ল্যাটফর্মের ‘টেকনিক্যাল সচিবালয়’ হিসেবে কাজ করবে।

নিহাদ কবির বলেন, ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই, এমসিসিআই, ডিসিসিআইসহ দেশের বিভিন্ন বাণিজ্য সংগঠন তাদের নিজেদের কাজ চালিয়ে যাবে।

“একইসঙ্গে এই মহাসঙ্কটের সময় সবাই মিলে কী করলে দ্রুত আমরা এই পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে পারব-সেটা খুঁজে বের করে কৌশল ঠিক করতেই এই প্ল্যাটফর্ম।

“প্রাথমিকভাবে আগামী দুই বছর আমরা আমাদের এই প্ল্যাটফর্মটির কাজ চালিয়ে যাব ঠিক করেছি। প্রয়োজন হলে সময় আরও বাড়ানো হবে।”

21 Shares