Home » Uncategorized » সীতাকুণ্ডে ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা

সীতাকুণ্ডে ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা

 

কে এম রুবেল, চট্টগ্রাম :
সীতাকুণ্ড উপজেলার মুরাদপুর ইউনিয়নের গোলাবাড়িয়া উত্তর বিল এলাকায় রাতের আঁধারে এক ব্যবসায়ীকে উপুর্যপুরি কুপিয়ে-পিটিয়ে জখম করেছে দুর্বৃত্তরা।গুরুতর আহত অবস্থায় ওই ব্যবসায়ীকে মাটিতে ফেলে দিয়ে তার সঙ্গে থাকা নগদ ৭০ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায় দুর্বৃত্ত দল।এতে ওই ব্যবসায়ীর বাম হাতে মারাত্মক জখম হয়ে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। পরে স্থানীয়রা তাকে অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করে সীতাকুণ্ড উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক চমেকে প্রেরণ করেন।

আহত ব্যবসায়ী জাবেদ হোসেন ভূইয়া সীতাকুণ্ড উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল আল বাঁকের ভূইয়ার ভাগিনা বলে জানা যায়।

৬ এপ্রিল মঙ্গলবার রাত দশটায় সীতাকুণ্ডের গোলাবাড়িয়ায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় আহত ব্যবসায়ী জাবেদ হোসেন ভূঁইয়া বাদী হয়ে ৬ জনের নাম উল্লেখপূর্বক অজ্ঞাত আরো ৪/৫ জনের নামে সীতাকুণ্ড মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ২ মাস আগে জাবেদ হোসেন ভূঁইয়া জনৈক আমজাদের কাছ থেকে একটি মাটি কাটার ড্রেজার ভাড়া করে। তার ব্যবসায়ীক প্রতিপক্ষ লোকজন ড্রেজারের চালক সুমনকে হুমকি ও চুরি করে ড্রেজার নিয়ে যায়। এ নিয়ে বেশ কয়েকজনের সাথে তার ঝামেলা হয়ে আসছিল। ৬ এপ্রিল রাতে ড্রেজার সংক্রান্ত বিষয়ে প্রতিপক্ষের সাথে দ্বন্দ্ব চরমে রূপ নেয়। এসময় প্রতিপক্ষের লোকজনের সাথে কথাকাটি হয় জাবেদ হোসেন ভূঁইয়ার। জাবেদের দাবি ঝগড়ার একপর্যায়ে প্রতিপক্ষের লোকজন তাকে দা ও রামদা দিয়ে মাথায় কোপ দিলে জাবেদ তার বাম হাত উঁচিয়ে দেয়। এসময় রামদার কোপে তার বাম হাত জখম হয়। ঘটনাক্রমে আরো কয়েকজন এসে জাবেদকে এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি দিতে থাকে এবং মাটিতে ফেলে শ্বাসরোধে হত্যার চেষ্টা করে। পরে জাবেদের চিৎকার শুনে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে হামলাকারীরা তড়িঘড়ি করে জাবেদের প্যান্টের পকেটে থাকা নগদ ৭০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয় এবং জাবেদকে এই বলে হুমকি দেয় যে যদি কোন আইনি ব্যবস্থার চেষ্টা করে তাহলে তাকে মেরে লাশ গুম করে ফেলা হবে।
এসব বিষয়ে জাবেদ হোসেন ভূঁইয়া বলেন, হামলাকারী আবুল মুনসর, সাগর, আমজাদ, সাইফুল, শামিম,জাসেদ চেয়েছিল আমাকে হত্যা করতে।লোকজন না এলে হয়তো তাই করতো। তারা আমার নগদ ৭০ হাজার টাকা নিয়ে গেছে। এখনও নানাভাবে আমাকে হুমকি দিয়ে যাচ্ছে তারা। আমি এখন জীবনের নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। আমি আইনের আশ্রয় চাই।
সীতাকুণ্ড থানার কর্মরতা এ সাই হারুন বলেন, আমরা একটা অভিযোগ পত্র পেয়েছি আমরা এই বিষয়ে গুরুত্ব দিয়ে দেখবো । তদন্ত করে যারা অপরাধী তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে।

0 Shares