Home » আন্তর্জাতিক » সু চির স্বাস্থ্য ভালো আছে : আইনজীবী

সু চির স্বাস্থ্য ভালো আছে : আইনজীবী

 

 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
সেনাঅভ্যুত্থানে গ্রেপ্তার হওয়া মিয়ানমারের গণতন্ত্রপন্থি নেত্রী অং সান সু চির স্বাস্থ্য ভালো আছে বলে জানিয়েছেন তার একজন আইনজীবী।

 

বুধবার সুচির সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠক শেষে তার আইনজীবী মিন মিন সোয়ে টেলিফোনে বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে এ কথা জানান।

গত ১ ফেব্রুয়ারি অভ্যুত্থানের মাধ্যমে মিয়ানমার সেনাবাহিনী দেশটির ক্ষমতা দখল করে। গ্রেপ্তার করা হয় সু চিকে। সেনাবাহিনী শান্তিতে নোবেল জয়ী সু চিকে কোথায় রেখেছে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

সু চির বিরুদ্ধে একাধিক মামলা হয়েছে এবং ভার্চুয়ালি তাকে আদালতে হাজির করা হচ্ছে।

সু চি তার আইনজীবীদের সঙ্গে সরাসরি দেখা করতে চাইছেন। কিন্তু সেনাবাহিনী তাকে সে ‍অনুমতি দিচ্ছে না। এদিকে, ভিডিও কলে পুলিশের উপস্থিতিতে সু চি তার আইনজীবীদের সঙ্গে বিস্তারিত আলোচনা করতে রাজি নন বলে রয়টার্সকে জানান আইনজীবী সোয়ে।

তিনি বলেন, আম্মে(যার অর্থ মা, সু চিকে এই নামেই ডাকা হয়) কে দেখে সুস্থ আছেন বলেই মনে হয়েছে। তাকে দেখতে ভালো লাগছিল।”

অভ্যুত্থানের পর সু চির বিরুদ্ধে যেসব মামলা হয়েছে শুধু সেসব নিয়েই এদিন কথা হয়েছে বলে জানান তিনি।

৭৫ বছরের সু চির বিরুদ্ধে বিদেশ থেকে অবৈধভাবে ছয়টি ওয়াকিটকি আনা এবং বেআইনি যোগাযোগের জন্য সেগুলো নিজের কাছে রাখার অভিযোগে মামলা হয়েছে। পরে তার বিরুদ্ধে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে জারি করা নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘনের অভিযোগেও মামলা হয়।

এছাড়া, সর্বশেষ দুইটি সংবাদ সম্মেলনে সেনাবাহিনী সু চির বিরুদ্ধে ঘুষ গ্রহণের ‍অভিযোগ করেছে।

আগামী বৃহস্পতিবার সু চির মামলার পরবর্তী শুনানির দিন।

গত বছর নভেম্বরের নির্বাচনে ‘প্রতারণার মাধ্যমে’ সু চির দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি (এনএলডি) ক্ষমতায় যায় বলে অভিযোগ সেনাবাহিনীর এবং সেনাঅভ্যুত্থানের কারণ ব্যাখ্যায়ও তারা একই অভিযোগের কথা বলছে।

সেনাঅভ্যুত্থানের পর মিয়ানমার জুড়ে এর বিরুদ্ধে টানা গণবিক্ষোভ চলছে। বিক্ষোভ দমনে বলপ্রয়োগ করছে সেনাবাহিনী। এখন পর্যন্ত সেনাবাহিনী ও পুলিশের গুলিতে সেখানে ৫২১ বিক্ষোভকারীর নিহত হয়েছে। যাদের মধ্যে ১১৪ জনকেই হত্যা করা হয় গত শনিবার, মিয়ানমারের সশস্ত্র বাহিনী দিবসে।

সেনাবাহিনীর সঙ্গে নানা আদিবাসী বিচ্ছিন্নতাবাদী সশস্ত্র দলগুলোরও সংঘাত শুরু হয়েছে। প্রাণ বাঁচাতে ওই সব এলাকার স্থানীয় বাসিন্দারা বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়ে প্রতিবেশী দেশগুলোতে আশ্রয় নিচ্ছে।

0 Shares